নাটোরের তিশিখালি মাজার মসজিদের ‘ভঙ্গুর দশা’

0
14

পিন্টু স্যার,নাটোর প্রতিনিধি:-

হযরত ঘাসি দেওয়ান (রহঃ)-এর মাজার অবস্থিত নাটোরের সিংড়া উপজেলার চলনবিলের প্রানকেন্দ্র ইটালী ইউনিয়নের তিশিখালিতে। সেখানে দৃষ্টিনন্দন মাজার শরিফও রয়েছে। অনেক ভক্ত এবং দর্শনার্থীরা এখানে মানত করতে আসে। প্রতি শুক্রবার হাজারো মানুষ আসে। স্থানীয় সংসদ এবং আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের প্রচেষ্টায় দৃষ্টিনন্দন ভবন রয়েছে। তবে মাজার দেখভাল কমিটির কোনো নজরদারি নাই।

স্বল্পমূল্যে বেশি প্রচার , মাত্র ৩০০ টাকায় ১ মাস বিজ্ঞাপন প্রচার করতে এখনী ক্লিক করুন

সরেজমিনে দেখা যায়, মাজারের উত্তর পাশে রয়েছে একটি ভঙ্গুর মসজিদ। প্রতি শুক্রবার মাজার পরিদর্শন এবং মানত করতে আসে শত শত মানুষ। কিন্তু মসজিদে নামাজ পড়ার স্থান সংকুলন হয় না। সেখানে নামাজ পড়ার জন্য অত্যধূনিক মসজিদ দরকার। দুর দুরান্ত থেকে আগত মানুষ নামাজ পড়তে না পেরে ফিরে চলে যায়। সেখানে একটি টিনের চালে এক সাথে সর্বোচ্চ ২৫/৩০ জন নামাজ পড়তে পারে। তাও বৃষ্টি হলে নামাজ পড়ার অবস্থা থাকে না। টিনের চালা দিয়ে পানি পড়ে।

ইটালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বেলাল খান বলেন, ‘আমি মাজার কমিটির ২ বছর দায়িত্বে থাকাকালীন মাজারের টাকা তছরুপ করতে দিইনি। মাজারের উত্তর পাশ দিয়ে প্রাচির নির্মাণ করে দিয়েছিলাম। কিন্তু পরবর্তীতে আমি দায়িত্ব থেকে অব্যহতি নেই। তারপর মাজারের টাকায় কোনো উন্নয়ন চোখে পড়েনি।’

৩ নং ইটালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম আরিফ জানান, প্রতিমন্ত্রি জুনাইদ আহমেদ পলক প্রায় ১ কোটি টাকা ব্যয়ে দৃষ্টিনন্দন মাজার ভবন করে দিয়েছেন। প্রতিমন্ত্রীর বরাদ্দ এবং আমান ব্যক্তিগত সহায়তায় মসজিদ নির্মাণ করার চিন্তা রয়েছে। মাজার কমিটির সহযোগিতা পেলে অনেক পুর্বেই মসজিদ নির্মান করা যেতো।

মসজিদের নির্মাণ দর্শনার্থীরা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

Leave a Reply