ঐক্যবদ্ধ থাকলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ক্ষমতার পরিবর্তন: নওয়াজ

0
5
নওয়াজ শরিফ

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ বলেছেন, দেশে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ক্ষমতার পালাবদল হতে পারে। তবে এ জন্য জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এই পালাবদলের জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের এক থাকতে হবে।

নওয়াজ শরিফ পাকিস্তান মুসলিম লিগের (পিএমএল-এন) নেতা। তাঁর বিরুদ্ধে পাকিস্তানে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। গত নভেম্বরে জামিনে মুক্তি পেয়ে চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যের লন্ডনে গিয়ে আর দেশে ফেরেননি পাকিস্তানের তিনবারের এই প্রধানমন্ত্রী। যদিও তিনবারের কোনবারই মেয়াদ পূরণ করতে পারেননি তিনি।

নওয়াজের দলের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির বৈঠক গতকাল বুধবার লাহোরে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে লন্ডন থেকে অনলাইনে যুক্ত হন নওয়াজ। তিনি বলেন, ‘সবাই যদি ঐক্য বদ্ধ থাকে তবে পরিবর্তন আনা মাত্র কয়েক সপ্তাহের বিষয়। আমি আমার নিজের দেশে দাসের মতো থাকতে চাইনি। আমি সম্মান ও গর্ব নিয়ে মুক্ত পাকিস্তানে থাকতে চাই।’

নওয়াজ তাঁর বক্তৃতায় সোচ্চার ছিলেন পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর রাজনীতিতে হস্তক্ষেপের বিষয়ে। নওয়াজ বলেন, ‘আমরা সর্বোচ্চ সহিষ্ণুতা দেখিয়েছি। শেষ পর্যন্ত কথা বলার সময় এসেছে। ২০১৮ সালে যারা নির্বাচনে জালিয়াতি তাদের জনগণের মুখোমুখি দাঁড়াতে হবে।’ তিনি বলেন, অযোগ্য ও অসমর্থ ইমরান খানকে যারা জাতির ওপর চাপিয়ে দিয়েছেন, তাঁদের অনুশোচনা করতে হবে।

বক্তব্যে নওয়াজ গোপন তথ্য ফাঁস করেন। তিনি বলেন, ২০১৪ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী থাকার সময় ইমরান খান অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন। তখন পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা আইএসআইয়ের প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল জহিরুল ইসলাম রাতে ফোন করেন পদত্যাগ করার জন্য চাপ দেন। নয়তো সামরিক শাসন জারির হুমকি দেন। নওয়াজ বলেন, ‘আমি তখন বলি, আপনাদের যা ইচ্ছা করেন করতে পারেন, কিন্তু আমি পদত্যাগ করব না।’

রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর প্রভাব নিয়ে নওয়াজ শরিফ বলেন, পুরো ব্যবস্থা রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

গত ২০ সেপ্টেম্বর পাকিস্তানের বিরোধী দলগুলোর সম্মেলন হয়। এই সম্মেলনের আয়োজক ছিল দেশটির আরেক রাজনৈতিক দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি)। ওই সম্মেলনে নওয়াজ শরিফসহ বেশ কয়েকটি বিরোধী দলের নেতারা অংশ নেন। তবে অন্য দলের নেতাদের চেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ ছিল, বৃহৎ দুই দল পিপিপি ও পিএমএলের শীর্ষ নেতৃত্বের এক সভায় আসা। আর সেই সঙ্গে সরকারবিরোধী অবস্থানে এককাট্টা হওয়ার ইঙ্গিত। এরপর গত সোমবার অর্থ পাচার মামলায় নওয়াজ শরিফের ভাই ও পার্লামেন্টের বিরোধী দলের নেতা শাহবাজ শরিফকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সূত্র : প্রথম আলো

Leave a Reply