সরকারি রাস্তা ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহারে পানি বন্দি কয়েকটি পরিবার

0
2
সরকারি রাস্তা ব্যক্তি স্বার্থে ব্যবহারে পানি বন্দি কয়েকটি পরিবার

মোরশেদ আলম, কেশবপুর ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি:-

যশোর কেশবপুরের হাড়িয়াঘোপে টানা কয়েকদিনের বৃষ্টির কারনে গ্রামের কয়েকটি সংখ্য লঘু পরিবার সহ পানি বন্দি কয়েশ মানুষ। জানাগেছে উপজেলার হাঁড়িয়াঘোপ গ্রামের সরকারি রাস্তার জমি দখল করে ঘের সবজি চাষ সহ বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করার কারণে এই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। স্থানিয় এক জন প্রত্যক্ষদর্শী নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ব্যক্তি জানান এই পানিটি র্দীঘদিন যাবৎ সামাদ খাঁর বাড়ির পাশ দিয়ে শুলা কুড় নামক স্থানে বের হয়ে যেত। কিন্তুু বর্তমানে সেটি রাজনৈতিক নাম ভাঙ্গিয়ে জলিল নামক এক ব্যক্তি পানি যাওয়ার সেই পথটি বর্তমান বন্দ করে দিয়েছে যার কারনে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। সরকারি রাস্তার উপর পানি বেধে যাওয়ার কারণে কাচা মাল তরি তরকারি সবজি সহ মাছ ইত্যদি নিয়ে যেতে পারছে না এই এলাকার সাধারণ কৃষকরা।এলাকার কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির কারনে রাস্তটি বিভিন্ন ভাবে আটকিয়ে রেখেছে যার কারণে এই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। রাস্তাদিয়ে প্রতিদিন ডাক্তার দেখানোর জন্য শত শত মানুষ ডা. কামরুজ্জামানের বাড়ি যাই কিন্তু রাস্তায় পানি উঠার কারণে সেটি ব্যাহত হচ্ছে ফলে ভোগান্তিতে পড়েছে বাইরে থেকে আসা অনেক রোগী। স্থানীয় ভাবে গত ৮ ই আগস্ট শনিবার সন্ধ্যায় জসিমের দোকানে বসে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া মনি ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা এস,এম মহব্বত হোসেন এর নেতৃত্বে স্থানিয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সমস্য নিরাসনের জন্য চেষ্টা করছে তারা এবং উপস্থিতিত আরো অনেক গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সাথে ছিল তাদের কিন্তুু শেষ পর্যান্ত কোন ফয়সালা এখনও হয়নি। তবে তারা মনে করেন যদি আমিন দিয়ে রাস্তার সিমানা বের করা যাই তাহলে এই পানি নিস্কষন করা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন তারা।সকল অবৈধ বাঁধ উঠেয়ে দিয়ে দখল মুক্ত করলে পুনরায় পানির প্রবেশ উন্মুক্ত হবে বলে মনে করেন এলাকার ভুক্তভুগি মহল। কিন্তুু এই জলাবদ্ধতাকে কেন্দ্র করে এক শ্রেনীর স্বার্থনেশী মহল রাজনৈতিক ফয়দা লুটছে বলে জানান ঐ ব্যক্তি তিনি আরো বলেন অনেকে আবার বি,এন,পি রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় থেকেও নতুন করে আওয়ামীলীগের লেবাস লাগানোর জন্য স্থানিয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের সাথে মিশে নানান রকম ফন্দি ফিকির করছে এবং জটিলতা সৃষ্টি করছে বলে জানাগেছে । তবে এই পানি অতি দ্রুত যদি নিস্কাষন করা না যাই তাহলে এই এলাকাটি সহ বহুল কষ্টে নির্মিত এই সড়কটি নষ্ট হয়ে যেতে পারে বলে মনে করেন এলাকার ভুক্তভোগীরা। তাই প্রশাসনের কাছে অফমর জনগণের প্রানের এই রাস্তাটির উপর থেকে রাজনৈতিক প্রভাব খাটানো বন্দ করে সঠিক তদন্ত করে এই কৃতিম জলাবদ্ধ্যতা দুর করে এলাকার মানুষের পানির অভিশাপ থেকে মুক্ত করার জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকার সুধিজন।

Leave a Reply