স্কুল ছাত্রীর বাবা মা সহ ৪ জনকে পিটিয়ে আহত করলো বখাটেরা

ধর্ষণ

স্কুল ছাত্রীর বাবা মা সহ ৪ জনকে পিটিয়ে আহত করলো বখাটেরা

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ যৌন হয়রানী ও নারী ধর্ষণের প্রতিবাদে সারাদেশ যখন উত্তাল ঠিক সেই সময় ঈশ্বরদীতে বখাটে কর্তৃক ৮ম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুল ছাত্রীকে রাস্তা-ঘাটে প্রকাশ্যে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় তাঁর বাবা, মা ও চাচাসহ পরিবারের ৪ সদস্যকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে হৃদয় শেখ (২৫) এর নেতৃত্বে একদল বখাটে। আহতদের উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় হৃদয় শেখকে প্রধান আসামী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

১০ অক্টোবর শনিবার দুপুরে ঈশ্বরদী থানার এস আই শামীম হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ গ্রহনের আশ্বাস দিয়েছেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় ঈশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের জগন্নাথপুর গ্রামের বালুর খাদ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

লিখিত অভিযোগ, পুলিশ, এলাকাবাসী ও স্কুল ছাত্রীর পরিবার সুত্র জানায়, প্রায় এক বছর পূর্বে থেকে জগন্নাথপুর গ্রামের হাসান বিশ্বাসের মেয়ে ও মিরকামারী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী অন্তরা খাতুন (১৩) কে স্কুলে ও প্রাইভেটে যাওয়া আসার সময় একই এলাকার রঞ্জু শেখের লম্পট বখাটে ছেলে হৃদয় শেখ (২৫) প্রায়ই উত্যক্ত করতো। গত প্রায় ৬ মাস পূর্বে স্কুল ছাত্রী অন্তরা বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানালে তারা বিষয়টি হৃদয় শেখের পরিবারকে জানায়।

এতে হৃদয় ক্ষিপ্ত হয়ে স্কুল ছাত্রী অন্তরাকে বিভিন্ন মাধ্যমে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয়। এতেও কাজ না হলে অন্তরাকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ারও হুমকি দেয় হৃদয়। গ্রামের সহজ-সরল মানুষ হওয়ায় অন্তরার পরিবার বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য ফুরকান আলীকে জানায়। তিনি বিষয়টি স্থানীয়ভাবে বসে সাময়িকভাবে সমাধান করলেও গত এক সপ্তাহ পূর্বে হৃদয় আবারও নানাভাবে স্কুল ছাত্রী অন্তরাকে উত্যক্ত শুরু করে। প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে স্কুল ছাত্রী অন্তরার একটি নগ্ন ছবি বানিয়ে তা ফেইসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে ব্লাকমেইল করার চেষ্টা করে। বিষয়টি অন্তরার পরিবার জেনে যাওয়ায় গত শুক্রবার বিকেলে তারা হৃদয় শেখের কাছে জানতে চান সে কেন তাদের মেয়ের বিরুদ্ধে এমন ন্যাক্কারজনক কাজ করছে।
এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে হৃদয় শেখ তাঁর বন্ধু মাহফুজ ও সুমন লাঠিসোটা নিয়ে স্কুল ছাত্রী অন্তরার বাবা হাসান বিশ্বাস ও মা অনন্যা খাতুনের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে এলোপাথারি মারপিট করে গুরুতর আহত করে।
সে সময় হাসান বিশ্বাসের চাচা মহসীন বিশ্বাস (৫০) ও চাচাতো ভাই মজনু বিশ্বাস এগিয়ে এলে তাদেরও পিটিয়ে আহত করে।

বখাটে হৃদয়ের সহযোগী ইসলাম হোসেন, রঞ্জু শেখ, লিমন, রাবেয়া বেগম ও মাবিয়া খাতুন গং খবর পেয়ে ঈশ্বরদী থানার এ এস আই মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।

একাধিক সুত্র জানায়, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের প্রভাবে বখাটে সন্ত্রাসী হৃদয় শেখ এলাকায় বেপরোয়া চলাফেরা করে। কেউ কিছু বললেই তাকে নানা ধরণের হুমকি-ধামকি দেয় বলেও জানায় তারা।

এবিষয়ে ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দিন জানান, অভিযোগ পেয়েই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত শেষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

Author: admin

Leave a Reply