রাস্তা সংস্কারের অভাবে দুর্ভোগে হাজারো মানুষ।

0
204
ভাঙ্গা রাস্তা
  • পিন্টু স্যার,নাটোর প্রতিনিধি:-
  • প্রকাশ:০৭.০৯.২০২০, সময়:-১১.০০ am

নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার মালঞ্চি-বিহারকোল প্রধান সড়কে খানা খন্দকে জনদূর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরের অদূরে সোনাপাতিল মহল্লা এলাকায় এই ছোট বড় খানা খন্দকের কারনে সৃষ্ট জন দূর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

দুই বছর পূর্বে সড়কটি সংস্কার করা হলেও সুষ্ঠ পরিকল্পনার অভাবে ওই এলাকায় পরের বছরই সড়কের বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয় বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। তাছাড়া পৌর এলাকার এই গুরুত্বপূর্ন মহল্লাটির পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে সড়কের গর্তে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। ফলে অহরহ ঘটে দূর্ঘটনা।

বৃষ্টির সময় দূর্ভোগের মাত্রা আরও বেড়ে যায়। এদিকে ভাঙ্গা সড়ক নিয়ে চলছে দুই দপ্তরের মধ্যে রশি টানাটানি। পৌরসভা এবং এলজিইডি কেউই দায় নিতে চান না। এখন প্রশ্ন দেখা দিয়েছে পৌর এলাকার ভেতরে বাগাতিপাড়ার প্রাণকেন্দ্রের এই সড়কটি আসলে কার?

জানা গেছে, বাগাতিপাড়া-নাটোর প্রধান সড়কের মালঞ্চি বাজার থেকে তমালতলা মহিলা কলেজ পর্যন্ত প্রায় চার কিলোমিটার সড়ক প্রশ্বস্তকরন ও সংস্কার কাজ ২০১৮ সালের মে মাসের দিকে শেষ হয়। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) থেকে সেসময় কাজটি করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, ২০১৮ সালে সোনাপাতিল এলাকার একই স্থানে ভাঙ্গা সড়কের গর্তে জনদূর্ভোগের কারনে স্থানীয়রা সড়ক অবরোধ করে এবং আটকে থাকা সড়কের পানিতে বড়শি ফেলে মাছ শিকারের প্রতিকী প্রতিবাদ করেন। ওই সময় আন্দোলনের পর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে দ্রুত সংস্কার কাজ শেষ করা হয়েছিল।

কিন্তু সড়কটির সংস্কারের বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবারও একই এলাকায় সড়কটির বিভিন্ন স্থানে ভেঙ্গে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মওসুমে পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় ওইসব গর্তে পড়ে মোটরসাইকেল, অটো রিকশা, ভ্যানগাড়িসহ বিভিন্ন যানবাহন প্রায়ই দূর্ঘটনার শিকার হয়।

গত দু’দিনের বৃষ্টিতে সড়কের গর্তে পড়ে পথচারীরা বেশ কয়েকটি দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

Leave a Reply