চট্টগ্রামের পূজামন্ডপে এবার স্হায়ী পুলিশ মোতায়েন হবে না। সিএমপি কমিশনার

0
15

চট্টগ্রামের পূজামন্ডপে এবার স্হায়ী পুলিশ মোতায়েন হবে না। সিএমপি কমিশনার

মোঃ সিরাজুল মনির, ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রাম বিভাগ।

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে এবার চট্টগ্রামের পূজামণ্ডপগুলোর নিরাপত্তায় কোন স্থায়ী পুলিশ ও আনসার মোতায়েন করা হবে না। টহলের মাধ্যমেই এই নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। রবিবার সংবাদিকদের তিনি এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। সিএমপি কমিশনার বলেন, “কোন মণ্ডপে ‘স্ট্যাটিক’ পুলিশ ফোর্স থাকবে না, পেট্রোলিংয়ে মাধ্যমে পুলিশ দায়িত্বে থাকবে। কোন মণ্ডপের ভেতরে যেন এক সাথে ২০ থেকে ২৫ জনের বেশি লোক জড়ো না থাকে সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। এক্ষেত্রে প্রবেশ পথে ভিড় হতে পারে, সেটিও আপনাদের খেয়াল রাখতে হবে। পূজা মণ্ডপে দর্শনার্থীদের মাস্ক ছাড়া প্রবেশ করতে দেবেন না।

তিনি বলেন, প্রতিটি পূজা মন্ডপের প্রবেশমুখে নারী ও পুরুষের জন্য পৃথক প্রবেশের ব্যবস্থার পাশাপাশি হাত ধোয়া, মাস্ক পরিধান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও থার্মাল স্ক্যানার বাধ্যতামূলক। পূজা মন্ডপে আগত নারীরা যেন কোনভাবেই লাঞ্চিত না হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে। প্রতিটি মন্ডপের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় পৃথক স্বেচ্ছাসেবক টিম সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে। আরতি ও অঞ্জলি প্রদান সহ প্রতিটি অনুষ্ঠানে যথাযথ সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে হবে। বিসর্জনের ক্ষেত্রে শোভাযাত্রা না করে স্থানীয়ভাবে স্বল্প সময়ে বিসর্জনের ব্যবস্থা করতে হবে। তাছাড়া জনসমাগম এড়াতে মন্ডপের আশেপাশে কোন ধরনের গাড়ি পার্কিং, মেলা, দোকান পাট বসানো থেকে বিরত থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়াও যে কোন জরুরী সেবা পেতে ৯৯৯ নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

এসময় সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) আমেনা বেগম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অপারেশন) এস. এম. মোস্তাক আহমেদ খান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ, উপ-পুলিশ কমিশনার(সদর) মো. আমির জাফর সহ অন্যান্য উপ-পুলিশ কমিশনারগণ, অতি. উপ-পুলিশ কমিশনারগণ, সহকারী পুলিশ কমিশনারগণ , অফিসার ইনচার্জগণ, র‌্যাব, এপিবিএন, এনএসআই, ডিজিএফআই, ফায়ার সার্ভিস, আনসার ও ভিডিপি এর প্রতিনিধি, চট্টগ্রাম মহানগরীর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এ্যাডভোকেট চন্দন তালুকদার ও সেক্রেটারী শ্রী প্রকাশ দাশসহ সকল থানার পূজা উদযাপন কমিটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply