কথা সাহিত্যিক ও গবেষক রশীদ হায়দার না ফেরার দেশে চলে গেলেন।

একুশে পদকপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক ও গবেষক রশীদ হায়দার (৭৯) আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আজ মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) সকাল ১০টায় রাজধানীর নিজ বাসায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

তার মেয়ে শায়ন্তি হায়দার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। রশীদ হায়দার বেশ কিছুদিন যাবৎ বার্ধক্যজনিত কারণে অসুস্থ ছিলেন।

পাবনার দোহারপাড়ায় ১৯৪১ সালের ১৫ জুলাই জন্ম হয় রশীদ হায়দারের। তার ডাকনাম দুলাল। গোপালগঞ্জ ইনস্টিটিউশন থেকে মাধ্যমিক ১৯৫৯ সালে ও পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক ১৯৬১ সালে পাস করেন তিনি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন ১৯৬৫ সালে।

তার বড়ভাই জিয়া হায়দার “চিত্রালী” নামে একটি পত্রিকায় কাজ করতেন। জিয়া হায়দার নারায়ণগঞ্জের তোলারাম কলেজে চাকরি নিয়ে চলে যাওয়ার সময় পত্রিকার কর্তৃপক্ষকে ছোট ভাই রশীদ হায়দারকে কাজ করার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেন। সেই সুবাদে ১৯৬১ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়ার পাশাপাশি জনপ্রিয় পত্রিকা “চিত্রালী”তে কাজ শুরু করেন।

রশীদ হায়দারের গল্প, উপন্যাস, নাটক, অনুবাদ, নিবন্ধ, স্মৃতিকথা ও সম্পাদনা মিলিয়ে ৭০-এর বেশি বই প্রকাশ হয়েছে। কথাসাহিত্যে অবদান রাখার জন্য বাংলা একাডেমি পুরস্কার (১৯৮৪), একুশে পদক (২০১৪), হ‌ুমায়ূন কাদির পুরস্কার, পাবনা জেলা সমিতি স্বর্ণপদক, রাজশাহী সাহিত্য পরিষদ পুরস্কার, অগ্রণী ব্যাংকসহ বিভিন্ন পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন তিনি।

Leave a Reply