পূর্বাঞ্চল রেলওয়ে ( চট্টগ্রাম ) এর আয় কমে গেছে ৩৫৭ কোটি টাকা।

পূর্বাঞ্চল রেলওয়ে ( চট্টগ্রাম ) এর আয় কমে গেছে ৩৫৭ কোটি টাকা।

মোঃ সিরাজুল মনির, ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রাম বিভাগ:-

করোনার কারণে রেলে যাত্রী ও পণ্য পরিবহন দুটোই কমেছে। যার ফলে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলে ( চট্টগ্রাম ) অর্জিত হয়নি রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা। আয় হ্রাস পেয়েছে গত অর্থ বছরের চেয়ে প্রায় ৩৫৭ কোটি টাকা।

রেলওয়ের তথ্যমতে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে রেলওয়ের রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ২ হাজার ১৩ কোটি তিন লাখ টাকা। এর মধ্যে পূর্বাঞ্চলের (ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ) লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ হাজার ৪১ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। আর পশ্চিমাঞ্চলের (খুলনা, রাজশাহী, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগ) লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৮০৫ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। এ লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে পূর্বাঞ্চল থেকে রাজস্ব আয় হয়েছে মাত্র ৬৮৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। আর পশ্চিমাঞ্চল থেকে আয় হয়েছে ৪৫৪ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। এছাড়া টেলিকম খাতের ইজারা থেকে আয় হয়েছে ৬০ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। সব মিলিয়ে গত অর্থবছরে রেলের আয় দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২০০ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে এ আয় প্রায় ৪০ শতাংশ কম।

এদিকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে রেলওয়ের আয় ছিল ১ হাজার ৫৯০ কোটি ১০ লাখ টাকা। এ হিসাবে বিদায়ী অর্থবছরে রেলের আয় কমেছে ৩৮৯ কোটি ৭৭ লাখ টাকা বা ২৪ দশমিক ৫১ শতাংশ।

রেলওয়ের বাণিজ্যিক বিভাগ সূত্র জানা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরে রেলওয়ে যাত্রী পরিবহন করে আয় করেছে ৬ কোটি ৩৭ লাখ ৫৮ হাজার। এর আগের বছর এ সংখ্যা ছিল ৯ কোটি ২৭ লাখ পাঁচ হাজার। অর্থাৎ করোনার কারণে ট্রেন বন্ধ থাকায় রেলের যাত্রী পরিবহন কমেছে দুই কোটি ৮৯ লাখ ৪৭ হাজার বা ৩১ দশমিক ২২ শতাংশ। আর গত অর্থবছরে রেলওয়ে যাত্রী পরিবহন থেকে আয় করে ৭৭০ কোটি ১৫ লাখ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এ খাতে রেলওয়ের আয় ছিল ১ হাজার ৩৫ কোটি ২৪ লাখ টাকা। অর্থাৎ যাত্রী পরিবহন কম হওয়ায় খাতটি থেকে আয় কমেছে প্রায় ২৫ দশমিক ৬১ শতাংশ।
রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বাণিজ্যিক বিভাগের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, গত পাঁচ বছরের মধ্যে এত কম যাত্রী রেলওয়ে পরিবহন করেনি।

এর কারণ হলো-করোনার কারণে ২৬ মার্চ থেকে টানা ৬৬ দিন ছিল সাধারণ ছুটি। এর দুদিন আগে ২৪ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে যায় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল। পরবর্তীতে ৩১ মে থেকে পর্যায়ক্রমে কিছু ট্রেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে চালু করা হলেও তাতে তেমন যাত্রী ছিল না। এখন দেশব্যাপী ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হওয়ায় আগামী অর্থ বছরে রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে বলে জানান বাণিজ্যিক বিভাগের ওই কর্মকর্তা।

২০১৯-২০ অর্থবছরে রেলওয়ে পণ্য পরিবহন করে ২ লাখ ছয় হাজার ২১ ওয়াগন। এর আগের বছর এ সংখ্যা ছিল ২ লাখ ৪৫ হাজার ৭৯৯ ওয়াগন। অর্থাৎ করোনার কারণে পণ্য পরিবহন কমেছে ৩৯ হাজার ৭৮ ওয়াগন বা ১৫ দশমিক ৯০ শতাংশ। আর গত অর্থবছর রেলওয়ে পণ্য পরিবহন থেকে আয় করে ২৪৬ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এ খাতে রেলওয়ের আয় ছিল ২৮৬ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। অর্থাৎ পণ্য পরিবহন খাত থেকে আয় কমেছে মাত্র ১৩ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

Author: admin

Leave a Reply