চট্টগ্রামের সকল উপজেলায় হবে যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।

0
23
চট্টগ্রামের সকল উপজেলায় হবে যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।
মোঃ সিরাজুল মনির, ব্যুরো প্রধান, চট্টগ্রাম বিভাগ:-

যুবকদের বেকারমুক্ত করার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রামের ১৫টি উপজেলায় যুব প্রশিক্ষণ ও বিনোদন কেন্দ্র করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ‘তারুণ্যের শক্তি, বাংলাদেশের সমৃদ্ধি’ স্লোগানকে সামনে রেখে প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়েছে। যা সরকারের নির্বাচনী ইশতেহারেও ছিল। যুব প্রশিক্ষণ ও বিনোদন কেন্দ্রগুলোকে বিভিন্ন ট্রেডে যুবদের প্রশিক্ষণ দেয়ার পাশাপাশি তরুণদের কর্মসংস্থান ও বিনোদনের কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এ কেন্দ্রগুলো নির্মিত হলে যুবকদের আত্মনির্ভরশীলতা বাড়বে বলে মনে করছে সরকার।
চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম জাকারিয়া বলেন, ‘সরকার প্রতিটি উপজেলায় যুব প্রশিক্ষণ ও বিনোদন কেন্দ্র গড়ার উদ্যোগ নিয়েছে। আমরা মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত চিঠি উপজেলায় পাঠিয়ে দিয়েছি। কয়েকটি উপজেলা থেকে জায়গার অবস্থান তুলে ধরে প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়েছে। যা আমরা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা পেলেই এসব উপজেলায় কেন্দ্রগুলো গড়ে তোলা হবে। এটি সরকারের একটি ভালো উদ্যোগ। এ উদ্যোগটি বাস্তবায়ন হলে এলাকার যুব সমাজ আত্মনির্ভরশীল হওয়ার পথে অনেকদূর এগিয়ে যাবে।’
সূত্র জানায়, জাতীয় যুবনীতি-২০১৭ এর আলোকে যথাযথ বাস্তবায়নের জন্য সরকার তার নির্বাচনী ইশতেহার ২০১৮তে মোট জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ যুবককে এদেশের উন্নয়ন ও গৌরব বৃদ্ধিতে সক্ষম, নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন আধুনিক জীবন মনস্ক আত্মনির্ভরশীল যুবসমাজে রূপ দিতে চায়।
জানা যায়, যুব প্রশিক্ষণ ও বিনোদন কেন্দ্র স্থাপনের ক্ষেত্রে জায়গা বাছাইয়ে উপজেলা কমপ্লেক্স ও নিকটবর্তী এলাকায় সহজেই প্রবেশ করা যাবে এমন জায়গাকেই গুরুত্ব দিতে সরকারের নির্দেশনা রয়েছে। এ জমির মধ্যে খাসজমি, প্রযোজ্যক্ষেত্রে আংশিক খাস, আংশিক অধিগ্রহণকৃত জমি অথবা কোন খাসজমি পাওয়া না গেলে অধিগ্রহণযোগ্য জমির পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশনা দিয়েছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। এমন নির্দেশনা পেয়ে কেন্দ্রগুলো গড়ে তোলার জন্য উপজেলা কমপ্লেক্স ও নিকটবর্তী এলাকায় ৫০ শতক জমির খোঁজ নেয়া হচ্ছে। জমি চেয়ে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো চিঠি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। ইতোমধ্যে গত ১৩ অক্টোবর সাতটি উপজেলা থেকে প্রেরিত জমির তথ্য মন্ত্রণালয় পাঠিয়েছে জেলা প্রশাসক।
জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের ১৫টি উপজেলার মধ্যে হাটহাজারী, মিরসরাই, ফটিকছড়ি, বোয়ালখালী, রাঙ্গুনিয়া, সীতাকুন্ড ও চন্দনাইশ উপজেলা থেকে জমির তথ্য পাওয়া গেছে। এসব উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা কর্তৃক প্রেরিত চিঠি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। জমিপ্রাপ্ত হওয়ায় এ উপজেলাগুলোতে যুব প্রশিক্ষণ ও বিনোদন কেন্দ্র আগেভাগেই প্রস্তুত হবে। বাকি উপজেলাগুলোতেও জমি নির্ধারণ প্রক্রিয়া চলমান আছে। আগামী মাসের মধ্যেই এসব উপজেলা থেকে জমির প্রস্তাবনা পাওয়া যাবে।

Leave a Reply