পালিয়ে বিয়ের পর লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলো পাবনা ঈশ্বরদীর মেয়ে।

পাবনাঃ- পাবনার ঈশ্বরদীর মেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় বিয়ের পর মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলো। ঘটনাটি ঘটে কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা উপজেলার কুচিয়ামোড়া গ্রামে।

জানা যায়, পাবনা ঈশ্বরদী পৌর এলাকার পিয়ারপুরের বিলপাড়া এলাকার মৃত আকাইল হোসেনের মেয়ে সাহিদা খাতুন (১৯) গত দুই মাস পূর্বে ভেড়ামারার কুচিয়ামোড়া গ্রামের সোহেল (২৬) নামের এক ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্কে করে তারপর বাড়ি থেকে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে।

পালিয়ে বিয়ে করার পর থেকেই পরিবারের সঙ্গে আর কোন যোগাযোগ ছিলনা সাহিদার। মঙ্গলবার দুপুরে হঠাৎ খবর আসে সাহিদা তার শ্বশুর বাড়িতে মারা গেছে। খবর পেয়ে বাড়ির লোকজন তার লাশ নিয়ে ঈশ্বরদীর পিয়ারপুরে বিলপাড়ায় আনা হয়।

ওইদিকে শ্বশুরবাড়ির একটি ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় শাহিদাকে উদ্ধার করে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এরপর পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়ায় পোস্ট মর্টেম করার জন্য পাঠায়। পরবর্তীতে লাশ শাহিদার পরিবার ঈশ্বরদীর বাড়িতে নিয়ে আসা।

সাহিদার পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, শ্বশুর বাড়ির লোকজন সাহিদা আত্নহত্যা করে মারা গেছে বললেও তার সমস্ত শরীরে আঘাতের স্পষ্ট চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে তার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির মানুষ পিটিয়ে হত্যা করে ওড়না দিয়ে ঝুলিয়ে রেখে আত্নহত্যা বলে প্রচার করছে।

এ ব্যাপারে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দিন বলেন, লোকমুখে ঘটনাটি শুনেছি। এখনো নিহতের পরিবারের থেকে কেউ লিখিত কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Author: admin

Leave a Reply