পাবনায় ইছামতি নদী দখলদারদের হাত থেকে মুক্ত করতে মানববন্ধন।

পাবনাঃ- শনিবার (৩১ অক্টোবর) বেলা ১১টার সময় পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে পাবনার ঐতিহ্যবাহী ইছামতি নদীর অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ ও খনন করে বহমান নদীতে পরিণত করার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন পাবনা জেলা শাখার আয়োজনে পাবনা জেলা শাখার সহ-সভাপতি বিশিষ্ট সমাজসেবক শিক্ষানুরাগী এ্যাড. তোসলিম হাসান সুমন এর সভাপতিত্ব মানববন্ধনের কার্যক্রম শুরু হয়।

এ সময় বক্তারা বলেন, ইছামতি নদীতে আমাদের শৈশব কেটেছে সাঁতার কেটেছি, ব্রীজের উপর থেকে লাফ দিয়ে স্রোতের সাথে দূরে গিয়ে আবার ভেসে ওঠা এসবই এখন দূর অতীত স্মৃতি। কোথায় পাব এই অনাবিল আনন্দ! তিনি প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়ে বলেন, দ্রুততার সাথে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করে আবার ইছামতি নদীর প্রাণ ফিরিয়ে আনতে হবে।

ইছামতি নদীতে আবার আমরা নৌকায় ভাসতে চায়। ইছামিত নদীই হবে পাবনার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম।

যে ইছামতি নদী একসময় পাবনার পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করতো আজ সেই ইছামতি নদী পরিবেশের বিপর্যয় ঘটাচ্ছে। প্রতি মুহূর্তে ইছামতির ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধ বাতাসে বিষ ছড়াচ্ছে। পাবনার কিছু ভূমি দস্যু, অতি লোভী মানুষ ইছামতি নদীর দুই পাড় দখল করে বাড়িঘর নির্মাণ করে নদীটিকে গলা টিপে হত্যা করেছে। দখল-দূষণে এক সময়ের পাবনার ঐতিহ্য ইছামতি নদীটি আজ বিলুপ্তপ্রায়।

এরপরও একটি স্বার্থান্বেষী মহল উপরওয়ালাদের সাথে যোগাসাজশে ইছামতি নদীর ওপর অনেকগুলো ফুট ওভারব্রীজ সরকারি দফতর থেকে তৈরি করেছে।

যারা এই ফুট ওভারব্রীজ তৈরির সাথে জড়িত, তারা পাবনার মানচিত্র থেকে ইছামতি নদীকে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে বলে
তিনি দ্ব্যর্থহীনভাবে উল্লেখ করেন।

বা’পা পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আব্দুল হামিদ খান আরও বলেন, যতদিন এই ইছামতি নদী দখলদার উচ্ছেদ করে একটি প্রবাহমান নদীতে পরিণত না হবে ততদিন বা’পার কর্মীরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে।

স্বাগত বক্তব্য দেন বা’পা পাবনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক, বিলুপ্তপ্রায় ইছামতি নদী উদ্ধারে দুই দশকের আন্দোলন-সংগ্রামে উচ্চকণ্ঠ বিশিষ্ট সাংবাদিক-কলামিস্ট আব্দুল হামিদ খান।

তিনি বলেন, বসবাস উপযোগী স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ বিরাজ করবে সারাবছর। অনতিবিলম্বে থেমে থাকা অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ অভিযান শুরু করার জন্য বা’পার পক্ষ থেকে প্রশাসনের প্রতি তিনি জোর দাবি জানান।

আরো বক্তব্য দেন পাবনার বিশিষ্ট নারী নেত্রী সেলিম নাজির উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা হাসিনা আক্তার রোজী, সাঁথিয়া ডিগ্রী কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক দাইয়ান দুলাল, শামসুল হুদা ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম বাবু, পাবনা জেলা শিশু একাডেমির সাবেক কর্মকর্তা এনামুল হক খান মজলিশ, টেবুনিয়া শামসুল হুদা ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক আসাদুজ্জামান খোকন, টেবুনিয়া হাজেরা খাতুন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বুরহানুল ইসলাম, সহকারী শিক্ষক মোঃ আবু সাইদ, আনসার ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংক রাজশাহী বিভাগের সাবেক পরিচালক আব্দুল খালেক খান, পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান, সমাজসেবক রুবায়েত আলী মুনু, সুজানগর কুড়িপাড়া দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক, সাংবাদিক সাহানুর রহমান প্রমুখ।

মানববন্ধনের এই আলোচনা সভাটি পরিচালনা করেন পাবনা জেলা শাখার সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আবুল কালাম আজাদ।

Author: admin

Leave a Reply