ঈশ্বরদী ইপিজেডের নাকানো কোম্পানীর এডমিন অফিসারকে মারধর ও চাঁদা দাবি, মামলা দায়ের।

ঈশ্বরদী ইপিজেডের নাকানো কোম্পানীর এডমিন অফিসারকে মারধর ও চাঁদা দাবি, মামলা দায়ের।

 

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদী ইপিজেডে ‘নাকানো ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেডের” ম্যানেজার (এইচ আর এ্যান্ড এডমিন) অফিসার মমিনুল ইসলামকে মারপিট ও তাঁর নিকট ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করার ঘটনা ঘটেছে।
এতে ছাত্রলীগ নেতাসহ তিনজনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে গত সোমবার ২ নভেম্বর রাতে ঈশ্বরদী থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

তাঁর বাড়ি ঈশ্বরদী স্কুলপাড়ায়। তিনি ওই এলাকার মৃত: সাখাওয়াত মল্লিকের ছেলে।

মামলার আসামীরা হলেন শহরের শেরশাহ রোড কাঠালতলা এলাকার আনোয়ার হোসেনের ছেলে সজিব হোসেন (২২), আলোবাগ মোড়ের মো: মিন্টুর ছেলে নাঈম হোসেন (২০) ও চরমিরকামারী শাকরেগাড়ি এলাকার শহিদুল ইসলাম সরদারের ছেলে সাব্বির হোসেন (২৫)।

উল্লেখ, সাব্বির হোসেন ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ৯ অক্টোবর রাত ৮টায় সজিব মুঠোফোনে নাকানো ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেডের এডমিন অফিসার মমিনুল ইসলামকে এস এম স্কুল এ্যান্ড কলেজের গেটের সামনে আসতে বলেন।
মমিনুল ইসলাম সেখানে এলে নাকানো কোম্পানিতে ‘কারা ব্যবসা করেন’ তাদের নাম, ঠিকানা ও তালিকা দেখতে চান সজিব,নাঈম ও সাব্বির ।

এসব জানাতে অস্বীকৃতি জানালে কথাকাটির এক পর্যায়ে মমিনুলকে মারধর ও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে আসামীরা।

ঘটনার প্রায় এক মাস পর মামলা দায়ের প্রসঙ্গে মমিনুল ইসলাম এজাহারে উল্লেখ করেছেন মারধরের কারণে সে অসুস্থ ছিল এবং নাকানো কোম্পানীর উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে মামলা দায়ের করতে বিলম্ব হয়েছে।

সুত্রঃ সময়ের ইতিহাস

Author: admin

Leave a Reply