ঈশ্বরদীতে পিটিয়ে হত্যা করলো সিএনজি চালককে।

ঈশ্বরদীতে পিটিয়ে হত্যা করলো সিএনজি চালককে।

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদীতে মিজানুর রহমান সুজন (৩৭) নামে এক সিএনজি চালককে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) দুপুর ২ টায় ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত সিএনজি চালক সুজন ঈশ্বরদীর মুলাডুলি ইউনিয়নের শেখপাড়া মৃধাপাড়া গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেন মৃধার ছেলে।

নিহত সুজনের চাচাতো ভাই রিপন মৃধা জানান, সুজন প্রতিদিনের ন্যায় তার অটো সিএনজি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়।
পথিমধ্যে দাশুড়িয়া ট্রাফিক মোড় এলাকায় অপর সিএনজি চালক কাশেম জমিদার (৬০) এর সাথে সিরিয়াল ও যাত্রী উঠানো নিয়ে তর্ক বিতর্ক হয়।

এক পর্যায়ে কাশেম বড় লোহার তালা দিয়ে সুজনের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ব্যাপক আঘাত করে।

কাশেম জমিদার দাশুড়িয়া দরগাপাড়া মুচিপাড়ার মৃত আছের আলীর ছেলে।

তিনি বলেন, ঘটনার কিছুক্ষণ পর সুজন তাকে ফোন দিয়ে জানান, কাশেম তাকে ব্যাপক মারধোর করেছে এবং এখন তিনি ও কাশেম দুজনেই পুলিশের হাতে আটক রয়েছেন।

রিপন মৃধা আরো বলেন, এর কিছুক্ষণ পরেই খবর পায় সুজনকে মুমূর্ষু অবস্থায় ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। হাসপাতালে এসে সুজনকে মৃত দেখতে পায়।

তিনি এ ঘটনায় তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠু বিচারের দাবী জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী সুমন হোসেন বাঁধন জানান, তার সম্মুখেই জনৈক সিএনজি চালক কাশেম জমিদার নিহত সুজনকে ব্যাপক মারধর করে এবং পুলিশ দুজনকেই আটক করে।

এ ঘটনায় ঈশ্বরদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফিরোজ কবির এবং ঈশ্বরদী থানার ওসি সেখ নাসীর উদ্দিন হাসপাতালে এসে নিহত সুজনের মরদেহ সরেজমিন পর্যবেক্ষণ করেন এবং লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের সুষ্ঠ বিচারের আশ্বাস দেন।

Author: admin

Leave a Reply