টি-টোয়েন্টিরও শীর্ষে ফিরছেন সাকিব!

0
71

টি-টোয়েন্টিরও শীর্ষে ফিরছেন সাকিব!

ওয়ানডের পর এবার আইসিসি টি-টোয়েন্টি অলরাউন্ডার হিসেবে শীর্ষে ফিরতে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। আজ নতুন করে টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিং প্রকাশ করবে আইসিসি। নিষিদ্ধ হওয়ায় খেলায় ছিলেন না তিনি। এই সময়ে সাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বীরা নিয়মিত টি-টোয়েন্টি খেলেও সাকিবকে ছাপিয়ে যেতে পারেননি। তাই সাকিবই টি-টোয়েন্টিতেও শীর্ষ অলরাউন্ডার হতে যাচ্ছেন বলেই ধারণা পাওয়া গেছে। 
নিষিদ্ধ হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই আইসিসির তিন ফরম্যাটের র‍্যাংকিং থেকে নাম মুছে ফেলা হয় সাকিব আল হাসানের। নিষেধাজ্ঞার শেকল ভেঙে ফেরার পর কিছু দিন আগে  আইসিসির ঘোষিত ওয়ানডে র‍্যাংকিংয়ে সেরা অলরাউন্ডার হন নম্বর সেভেন্টি ফাইভ। এবার আরেক হারানো সিংহাসনে টি-টোয়েন্টি অলরাউন্ডার হবার অপেক্ষায় বাংলার ক্রিকেটের বরপুত্র।
কীভাবে? প্রশ্ন আসতেই পারে ক্রিকেট সমর্থকদের মনে। উত্তরে একটু পেছনে থাকলে লক্ষ্য করা যায়। নিষিদ্ধ হওয়ার পূর্বে ৩৫৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে টি-টোয়েন্টির সেরা অলরাউন্ডার ছিলেন সাকিব আল হাসান। নিষিদ্ধ হবার পর তার শীর্ষ অলরাউন্ডারের স্থান দখলের দারুণ সুযোগ ছিলো সাকিবের নিকট প্রতিদ্বন্দ্বীদের।
কিন্তু সুযোগটা লুফে নিতে পারেনি মোহাম্মদ নবী, ম্যাক্সওয়েলরা। বর্তমানে আইসিসি টি-টোয়েন্টি অলরাউন্ডার র‍্যাংকিংয়ে ২৯৪ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আফগানিস্তানের মোহাম্মদ নবী। এরপর ম্যাক্সওয়েল। ১০ নম্বর বাংলাদেশের মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।
সাকিব নিষিদ্ধ থাকা অবস্থায় খুব ধামাকা পারফরমেন্স করতে পারেনি এক নম্বরে থাকা আফগান নবী। এ সময়ে তিনি ৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলে রান করেছেন মাত্র ৫৬ বল হাতে পাননি কোন উইকেট।
বর্তমানে আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ে সেরা অলরাউন্ডারের তালিকায় দুই নম্বরে অস্ট্রেলিয়ার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, সাকিব নিষিদ্ধ হওয়ার পর ৪ ম্যাচে মাত্র ৩৩ রান করে উইকেট শিকার করেছেন ২টি।
তিন নম্বরে জিম্বাবুয়ের শেন উইলিয়ামস। তিনি খেলেছেন ৪ ম্যাচ। ব্যাটে ৬১ রান আসলেও, নেই কোন উইকেট।
এক বছর আগে যদি নজর দেয়া যায় সাকিবের সর্বশেষ ৬টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের পারফরম্যান্সে। তাহলে স্পষ্ট হবে কেন সাকিব আইসিসির অলরাউন্ডারের মসনদে সেরার সেরা।
নিষিদ্ধ হবার আগে ৬ ম্যাচে রান করেছেন ১৩৮, যার মধ্যে তার সর্বশেষ ইনিংস অপরাজিত ৭০ রানের। আর উইকেট শিকার করেছেন ১২টি তার মধ্যে আবার আছে টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার সেরা ৫ উইকেট শিকারের অর্জন আছে সাকিবের।
সাধারণত একেকটি সিরিজ শেষে র‍্যাংকিং ঘোষণা করে আইসিসি। মঙ্গলবার শেষ হয়েছে পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। তাই বুধবার বিকেলের মধ্যে আইসিসি নতুন টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিং ঘোষণা করবে।
হিসেবে বলছে; সাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বীরা চমকপ্রদক পারফর্মেন্স করতে না পারায় সাকিব আবারও ফিরতে যাচ্ছেন টি-টোয়েন্টির হারানো  মসনদে। নিষিদ্ধ হওয়ার পূর্বে সাকিবের রেটিং পয়েন্ট ছিলো ৩৫৫, আর বর্তমানে শীর্ষে থাকা আফগান মোহাম্মদ নবীর রেটিং পয়েন্ট ২৯৪। তাই বলাই যায় ভিন্ন কিছু না হলে বুধবার আইসিসির ঘোষিত নতুন র‍্যাংকিংয়ে ওয়ানডের পর টি-টোয়েন্টিতেও সেরা অলরাউন্ডার হতে যাচ্ছেন বাংলার জান সাকিব আল হাসান।

Leave a Reply