জীবননগরে পুরন্দপুর গ্রামে যুবক অপহরণ,১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

0
15

জীবননগরে পুরন্দপুর গ্রামে যুবক অপহরণ,১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি

তুহিনুর রহমান সোহাগ
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধিঃ-

জীবননগর উপজেলার পুরোন্দপুর গ্রাম থেকে রাতের আঁধারে এক যুবককে অপহরণ করার অভিযোগ উঠেছে। অপহরণকৃত যুবককে ফেরত পেতে পরিবারের কাছে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়েছে। অপহরণ ঘটনায় পরিবারের সন্দেহের তীর ছোট ভাইয়ের তালাক দেওয়া স্ত্রীর ডলির দিকে। গত শনিবার রাতে উপজেলার পুরোন্দপুর গ্রাম থেকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা যুবক হাসানকে(৩৫) অপহরণ করে।এই বিষয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,জীবননগর উপজেলার হাসাদহ ইউনিয়নের পুরোন্দপুর গ্রামের রবিউল ইসলাম বিশ্বাসের ছোট ছেলে কাজল হোসেন(২২) যশোর এমএম কলেজে অনার্সে পড়াশোনা করা কালে ডলি খাতুন (৩৫)নামের দুই সন্তানের জননী কে বিয়ে করে। পরে তাদের মধ্যে বনাবনি না হওয়ায় এ কাজল তার স্ত্রীকে তালাক দেয়। তাদের দাম্পত্য জীবনের ছাড়াছাড়ি কে কেন্দ্র করে বিরোধের সৃষ্টি হয় এরপর কাজলকে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকে ডলির পরিবার। গত শনিবার রাতে কাজলের বড় ভাই হাসানকে বাড়ি থেকে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা অপহরণ করে নিয়ে যায়।

অপহৃত যুবক হাসানের পিতা রবিউল ইসলাম বলেন,আমার পরিবারের লোকজন প্রতিদিনের মতো গত শনিবার রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষ করে যার যার ঘরে শুয়ে পরি রাত ৯ টার দিকে আমার বড় ছেলে হাসান বাড়ির উঠানে টিউবয়েলে যায় দীর্ঘ ক্ষণ ছেলে ঘরে ফিরে না আসায় আমরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি শুরু করি পরে ভোর চারটার দিকে ফোন আসে তাকে অপহরণ করা হয়েছে। ১০ লাখ টাকা না দিলে আমার ছেলেকে জবাই করে ফেলবে বলে হুমকি দিয়েছে। ছেলেকে নিয়ে আমরা শঙ্কায় আছি আমাদের সন্দেহ ছোট ছেলে কাজলের তালাক দেয়া স্ত্রীর ডলির দিকে।সে ভাড়া করা সন্ত্রাসী দিয়ে আমার ছেলে হাসানকে অপহরণ করেছে। এই ঘটনায় ডলি খাতুনসহ ৫-৬ জনকে আসামি করে জীবননগর থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি সাইফুল ইসলামের সাথে এই বিষয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,আমার থানায় একটি অপহরণের অভিযোগ দায়ের হয়েছে অভিযোগ পাওয়া মাত্রই তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের প্রক্রিয়া চলছে।

Leave a Reply