‘মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন’ স্লোগানে উত্তাল যুক্তরাষ্ট্র

0
14
মেক আমেরিকা গ্রেট অ্যাগেইন’, ট্রাম্প সমর্থকদের স্লোগানে উত্তপ্ত যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসি এবং লাস ভেগাসের রাজপথ। হোয়াইট হাউজের আশপাশ থেকে শুরু করে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা প্রদক্ষিণ করেন বিক্ষোভকারীরা। ভোট কারচুপির অভিযোগে তারা এ বিক্ষোভে অংশ নেন।

হোয়াইট হাউজ থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান নেন ট্রাম্পের সশস্ত্র সমর্থক গোষ্ঠী। এরই মধ্যে ট্রাম্পের কট্টর ডানপন্থি প্রাউড বয়েজের অনেক সদস্য ভারী অস্ত্র হাতে বুলেট প্রুফ জ্যাটে পড়ে মিছিলে অংশ নেন। এদিন সকালে ট্রাম্পের মোটর শোভাযাত্রা বিক্ষোভের পাশ দিয়েই অতিক্রম করে।
বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে ব্যাপক নিরাপত্তা সদস্য মোতায়েন করা হয়। যেন কোন ধরনের অপ্রতিকর ঘটনা না ঘটে।
আন্দোলনকারীরা জানান, ‘আমাদের এই কর্মসূচি শান্তিপূর্ণ। এখানে প্রচুর ট্রাম্পের সমথর্ক অবস্থান নিয়েছে। কারণ একটাই, নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং তার অনুসারীরা নির্বাচন চুরি করেছেন, এ প্রতিবাদেই আমাদের আন্দোলন’।
ট্রাম্পের সমর্থকদের ডাকা বিক্ষোভকে প্রতিহত করে সমাবেশের ডাক দেন বামপন্থিরাও। পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় দু’পক্ষের সংঘাতের আশঙ্কা ছিল। তবে কোন সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি।
শুধু ওয়াশিংটন ডিসি নয়, পুনরায় ভোট গণনার দাবি তুলে লাস ভেগাসের কালর্ক কাউন্টির নির্বাচন কমিশন দফতরের বাইরে শনিবার (১৪ নভেম্বর) বিক্ষোভ করেন ট্রাম্পের হাজার হাজার সমর্থক।
যুক্তরাষ্ট্রের ২০২০ সালের নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ট ট্রাম্পকে বিপুল ব্যবধানে হারিয়ে ৪৬তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। তবে, ট্রাম্প প্রতিনিয়ত দাবি করে আসছেন, তিনিই নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। বাইডেন ভোট চুরি করায় তিনি হেরে গিয়েছেন বলে অভিযোগ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের। একই সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় মামলা করেছেনও তিনি। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি মামলায় হেরেও গিয়েছেন বলে খবর প্রকাশ হয়েছে।
এদিকে, ট্রাম্পের অভিযোগ প্রত্যাখান করে মার্কিন নির্বাচনী কর্মকর্তারাও বলেছেন, ইতিহাসের সবেচেয়ে সুরক্ষিত নির্বাচন ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন।
আগামী মঙ্গল এবং বৃহস্পতিবার পেনসিলভেনিয়ার উইলিয়ামস্পোর্টের একটি আদালতে ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের হাজিরা দেয়ার কথা। এখানে ডাকযোগে ভোটে অনিয়মের অভিযোগ এনে ফলাফল বাতিলের আবেদন করেছিলো ট্রাম্প শিবির। পেনসিলভেনিয়ার নির্বাচনী ফলাফল আটকে দেয়ার বিষয়ে শুনানি হবে, রিপাবলিকান ম্যাথিউ ব্র্যান বিচারক হিসেবে উপস্থিত থাকবেন এতে।

Leave a Reply