ঈশ্বরদীতে সরকারি চাল বিক্রয় ডিলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ।প্রতিবাদ করায় মারধর !

0
51

ঈশ্বরদীতে সরকারি চাল বিক্রয় ডিলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ।প্রতিবাদ করায় মারধর !

ঈশ্বরদী প্রতিনিধিঃ ঈশ্বরদীতে গরিবের জন্য বরাদ্দ করা ১০ টাকা কেজির চাল অন্যত্র বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে ডিলারের বিরুদ্ধে।

কয়েকদিনের মতো গতকাল ১৬ নভেম্বর চাল কিনতে গিয়ে ফিরে আসতে হয়েছে কার্ডধারীদের।

এ ঘটনায় ডিলার লুৎফর রহমান ও সাহাপুর ইউপি সদস্য তৌহিদুল ইসলাম তুহিনের মধ্যে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে।

ঈশ্বরদীতে সরকারি চাল বিক্রয় ডিলারের বিরুদ্ধে অভিযোগ।প্রতিবাদ করায় মারধর !

বিষয়টি শেষমেশ থানা পর্যন্ত গড়িয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, কার্ডধারীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সাহাপুর ইউনিয়নের ১, ২, ৩ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ১০ টাকা কেজি দরের চালের ডিলার লুৎফর রহমানের কাছে যান ইউপি সদস্য তুহিন।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে ডিলারের লোকজন তাকে পিটিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় তিনি থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

তবে ডিলার লুৎফর পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, ইউপি সদস্য তুহিন তাকে মারধর করে ২০ বস্তা চাল লুট করে নিয়ে গেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সাবেক ইউপি সদস্য জুলফিকার মতিন জানান, তুহিন মেম্বার সেখানে ঘটনা জানতে গেলে তাকে মারধর করা হয়।

সাজেদা খাতুন, পারভীন খাতুন, রেনু বেগমসহ কয়েকজন জানান, একাধিক দিন তারা ১০ টাকা কেজি দরে চাল কিনতে গেলে পরে চাল দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।
এরপর তারা ইউপি সদস্যের কাছে অভিযোগ করেন।

সাহাপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য তুহিন অভিযোগ করে বলেন, সাহাপুর নতুন হাট গোল চত্বর মোড়ে জয়নাল মণ্ডলের খাদের পাড় এলাকায় এই চাল বিক্রি করা হয়।

ইউনিয়ন পরিষদ থেকে কার্ডপ্রাপ্তরা চাল কিনতে গেলে আজ না কাল দেব বলে তারা সময় ক্ষেপণ করে। দরিদ্র মানুষের অভিযোগের ভিত্তিতে ডিলার লুৎফরের কাছে যান তিনি।

এ সময় তার সঙ্গে বাগবিতণ্ডা হয় লুৎফর ও তার লোকজনের। এক পর্যায়ে সুজন মণ্ডল ও আমিরুল ইসলাম তাকে মারধর করে।

ডিলার লুৎফর রহমান বলেন, ইউপি সদস্য তুহিন একই কার্ড দু’জনকে দিয়েছেন, এ ঘটনা বলার কারণে তিনি আমাকে লাঞ্ছিত করেন।

আমাকে মারতে দেখে সেখানে থাকা লোকজন তাকে মারধর করেছে। আমি তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছি। থানায় ডাকা হয়েছে সেখানেই মীমাংসা হবে।

ঈশ্বরদী থানার ওসি শেখ নাসির উদ্দীন জানান, দু’পক্ষই অভিযোগ দিয়েছে। মীমাংসা না হলে তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply