চিনিডাঙ্গা পদ্ম বিল রক্ষায় প্রশাসনের সহযোগিতা চাইলেন এলাকাবাসী।

চিনিডাঙ্গা পদ্ম বিল রক্ষায় প্রশাসনের সহযোগিতা চাইলেন এলাকাবাসী।

  • পিন্টু স্যার,নাটোর প্রতিনিধি:-
  • প্রকাশ:- ১৪/০৯/২০২০, সময় ৭.৩৮ pm

নাটোর জেলার বড়াইগ্রাম উপজেলার চিনিডাঙ্গার বিল (পদ্ম বিল) নামে অতি স্বল্প সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবং সমাজের বিবেক নামে খ্যাত প্রিয় সাংবাদিক ভাইদের লেখনীর মাধ্যমে তুলে ধরার জন্য ভ্রমণ পিপাসু দর্শনার্থীদের কাছে ব্যাপক পরিচিত লাভ করে। যার ফলশ্রুতিতে প্রতিদিন পদ্মবিলের সৌন্দর্য্য উপভোগ করার জন্য আশেপাশের এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ভ্রমণ পিপাসুরা এসে ভীড় করেন।

এতে করে একদিকে স্হানীয় কিছু লোকের কর্ম সংস্হানের ব্যবস্হা হয়েছে এবং উক্ত বিল ঐতিহাসিকভাবে সমগ্র দেশ ব্যাপী পরিচিত লাভ করতে সক্ষম হচ্ছে।

সরেজমিনে পদ্ম বিল নামে খ্যাত চিনিডাঙ্গার বিল পরিদর্শন করে দেখা যায় বর্তমানে পদ্ম বিলে পদ্মপাতা এবং পদ্ম ফুলের পরিবর্তে সমগ্র বিল কচুরিপানায় ভরে আছে। বিলের আংশিক কিছু জায়গায় শুধু পদ্মপাতা শোভা পাচ্ছে।

তাই অতি দ্রুত যদি উক্ত বিল থেকে কচুরিপানা অপসারণ না করা হয় তাহলে আগামীতে পদ্ম বিলের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে শুধু চিনিডাঙ্গার বিল হয়ে যাবে। এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য সবিনয়ের সহিত স্হানীয় এবং জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে লেখনীর মাধ্যমে প্রশাসনের জোড়ালো দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য আমার প্রিয় সাংবাদিক ভাইদের পদ্মবিলের কচুরিপানা নিয়ে লেখালেখি করার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ করেন।

এছাড়া পদ্ম বিলে আরেকটি বিষয় লক্ষ্য করা গেছে, কিছু ভূমি খেকো চিনিডাঙ্গার বিলে বেশ কয়েকটি বড় বড় পুকুর খনন করে বিলের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য বিনষ্ট করতেছে।

ভবিষ্যতে যদি এভাবে চিনিডাঙ্গার বিলে পুকুর খনন চলতেই থাকে তাহলে পদ্মপাতা এবং পদ্ম ফুল বংশ বিস্তারের সুযোগ না পেয়ে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য বিনষ্ট হবে বলে আশংকা প্রকাশ করছি।

সুতরাং চিনিডাঙ্গার বিলে পদ্মপাতা ও পদ্ম ফুলের
বংশবিস্তারের সুযোগ সৃষ্টির জন্য কচুরিপানা অপসারণসহ উক্ত বিলে যাতে ভবিষ্যতে কেউ পুকুর খনন করে জমির প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য নষ্ট করতে না পারে এবিষয়ে জোড়ালো পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য স্হানীয় এবং জেলা প্রশাসন কে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ জানান।
এ ব্যাপারে শিক্ষক মাসুদুর রহমান বলেন প্রাকৃতিক ভাবে সৃষ্টি হওয়া পদ্ম বিল রক্ষায় সবার এগিয়ে আশা উচিত

Author: admin

Leave a Reply